আইপিএল ২০১৮: গৌতম গম্ভীরের মানসিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন সন্দীপ পাতিল

পাতিল জানিয়েছেন যে. অতীতে গম্ভীরের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক বেশ ভাল ছিল। কিন্তু যখন ভারতীয় দলে গম্ভীরের পরিবর্তে শিখর ধাওয়ান ও মুরলী বিজয়রা জায়গা পেতে থাকলেন, তখন গৌতির সঙ্গে পাতিলের সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকে।

গৌতম গম্ভীর (ফাইল চিত্র)
 গৌতম গম্ভীরের মানসিকতাই তাঁর আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে সাফল্য ও ব্যর্থতার ফারাক গড়ে দিয়েছে। এমনটাই মনে করেন সন্দীপ পাতিল। ‘দ্য কুইন্ট’-এ প্রকাশিত একটি নিবন্ধে এমনটাই লিখেছেন জাতীয় দলের প্রাক্তন প্রধান নির্বাচক। 

পাতিলের মতে গম্ভীর নিজের দোষেই ভারতীয় দলের কিংবদন্তি হতে পারেননি। ২০১১-তে ইংল্যান্ড সফরের সময় একটি ম্যাচে মাথায় চোট পান গম্ভীর। এরপর তিনি আর বাকি সিরিজে খেলেননি। এ সিদ্ধান্তকে বড় সড় ভুল বলেই মনে করছেন পাতিল। তিনি লিখেছেন, “আমি সে সময়ে জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমির ডিরেক্টর পদে ছিলাম। একটা ব্যাপার দেখে  আমি ভীষণ চমকে গেছিলাম। ফিজিও ও ডাক্তারদের দেওয়া রিপোর্টে বলা হয়েছিল যে, গম্ভীরের চোট তেমন গুরুতর নয়, ও সেই সিরিজে খেলতেই পারত।”

আরও পড়ুন, আইপিএল ২০১৮: ব্যর্থতার দায় নিয়ে দিল্লির অধিনায়কত্ব ছাড়লেন গম্ভীর

সম্প্রতি দলের ব্যর্থতার দায় কাঁধে নিয়ে আইপিএলের মাঝপথেই দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের ক্যাপ্টেনসি ছেড়েছেন তিনি। পাতিল জানিয়েছেন যে, তিনি গম্ভীরের সিদ্ধান্তকে সম্মান করলেও এ সিদ্ধান্তের কারণ বুঝতে পারছেন না। পাতিল লিখেছেন, “আমি গম্ভীরের পদত্যাগের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাচ্ছি। কিন্তু একমাত্র ও-ই জানে কেন  আইপিএল-এর মাঝপথে অধিনায়কত্ব ছাড়ল!” 

পাতিল জানিয়েছেন আগে গম্ভীরের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক বেশ ভালই ছিল। কিন্তু যখনই ভারতীয় দলে গম্ভীরের জায়গায় শিখর ধাওয়ান ও মুরলী বিজয়রা জায়গা পেতে থাকলেন, তখন গৌতির সঙ্গে পাতিলের সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকে। এ প্রসঙ্গে পাতিল জানিয়েছেন, “আমি তখন জাতীয় দলে নির্বাচক কমিটির প্রধান ছিলাম। আমরা ভেবেছিলাম যে, এবার অফ ফর্মে থাকা গম্ভীরের বদলে ধাওয়ানকে দলে একটা সুযোগ দেওয়া উচিত। এরপর মুরলী বিজয় আসতেই গম্ভীরের দলে ফেরার সব দরজা বন্ধ হয়ে গেল। সেসময়ে বিজয় ওপেনার হিসেবে দুর্দান্ত পারফর্ম করছিলেন। গম্ভীর তখনই আমাদের বন্ধুত্বের সম্পর্কটা শেষ করে দেয়। আমি ওর আবেগটা বুঝি। আমি সেটা খারাপ ভাবে দেখছিও না। এমনকি ব্যাপারটা আমি ব্যক্তিগত ভাবেও নিইনি।’’ পাতিল আরও বলেছেন যে,  দলগঠনের সময় বন্ধুত্ব, আবেগ এই ব্যাপারগুলো কাজ করে না। দেশই সবার আগে প্রাধান্য পায়। এ প্রসঙ্গে নির্বাচক কমিটির প্রাক্তন চেয়ারম্যান জানিয়েছেন যে, জঙ্গলের রাজাকেও একদিন জায়গা ছাড়তে হয়। পাতিল লিখেছেন, গম্ভীর আজও তাঁর সঙ্গে দূরত্ব বজায় রেখেই চলেন। “ আমার সঙ্গে ওর দেখা হলে হাসে পর্যন্ত না, এতটাই রেগে আছে আমার ওপর।” 

আরও পড়ুন, এটাই কি গম্ভীরের শেষ আইপিএল? ভিডিও দেখুন

Get the latest Bengali news and Sports news here. You can also read all the Sports news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Gautam gambhirs attitude the reason for his success and failure says sandeep patil

Next Story
নিজের শহরেই মোমের মূর্তি হয়ে যাচ্ছেন কোহলি
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com