scorecardresearch

বড় খবর

কোথায় কোথায় ভুল করল ইস্টবেঙ্গল! খুঁজতে গিয়ে সেই অজুহাতই ঢাল কনস্টানটাইনের

হার থেকে শিক্ষা নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর বার্তা দিলেন কোচ কনস্টানটাইন

কোথায় কোথায় ভুল করল ইস্টবেঙ্গল! খুঁজতে গিয়ে সেই অজুহাতই ঢাল কনস্টানটাইনের

প্রথম ম্যাচেই বিধ্বস্ত। ভালো সূচনা করেও ম্যাচের শেষে মাথা নিচু করে মাঠ ছাড়তে হয়েছে ইস্টবেঙ্গলকে। কেরালা ব্লাস্টার্সের দ্বিতীয়ার্ধের ঝড়ে উড়ে যাওয়ার পর স্টিফেন কনস্টানটাইন ঘুরিয়ে অজুহাতই দিয়ে গেলেন। ম্যাচ শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে ব্রিটিশ কোচ জানিয়ে দিলেন, “ইভান এবং তাঁর দলকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। যোগ্য দল হিসাবেই ওঁরা ৩-১ ব্যবধানে জিতেছে। আমি এখানে বসে অজুহাত দিয়ে বলতে চাই না যে আমরা একদম অনভিজ্ঞ একটা দল। মাত্র ছয় সপ্তাহ ট্রেনিং করছি। আরও অনেক কিছু। তবে এটাই হল ঘটনা।”

কেরালা ব্লাস্টার্সের মত দুই অর্ধেই একাধিক গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল ইস্টবেঙ্গল। যদিও স্বান্ত্বনা গোল হিসাবে শেষমেশ ইস্টবেঙ্গলের হয়ে স্কোরশিটে নাম লিখিয়েছেন আলেক্স লিমা। ম্যাচের পোস্ট মর্টেম করতে গিয়ে লাল-হলুদ বস বলছিলেন, “প্রথমার্ধে আমরা ঠিকঠাকই খেলেছি। গোলের প্ৰথম সুযোগও আমরা পেয়েছিলাম। তবে বিরতির পর আমাদের মনোসংযোগ সামান্য হারিয়ে গিয়েছিল। বিশ্বমানের গোল করল আদ্রিয়ান লুনা। ওঁর ওই পজিশনে সেই সময় থাকার কথাই ছিল না। ওঁকে কারোর না কারোর মার্ক করা উচিত ছিল। এখানেই আমরা ভুল মরে ফেলেছি। আসলে আমরা নিজেরাই নিজেদের সাহায্য করতে পারিনি।”

“হার সত্ত্বেও ম্যাচে পজিটিভও রয়েছে। এই কেরালা ব্লাস্টার্সই গত মরশুমে লিগ পর্যায়ে চতুর্থ স্থানে ফিনিশ করেছিল। সেই একই কোচ রয়েছেন। প্রথমার্ধে ওঁদের সঙ্গে পাল্লা দিয়েই খেললাম আমরা। তবে দ্বিতীয়ার্ধে আমাদের মোমেন্টাম একটু হারিয়ে যায়।”

আরও পড়ুন: ইস্টবেঙ্গলের ম্যাচ ডে’তেই মুখ খুললেন বাগানের তিরি! মনখারাপ করা বার্তায় গলিয়ে দিলেন হৃদয়

প্ৰথম ম্যাচে হার থেকে আইএসএল-এ দ্বিতীয় ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে চান কনস্টানটাইন। কোচিতে বসেই সমর্থকদের আশ্বস্ত করে তিনি বললেন, “দ্বিতীয় গোল হজম করাটা ম্যাচে প্রভাব ফেলে দিল। তারপরে একটা পাল্টা গোল দিয়েও আমরা বুঝিয়ে দিয়েছিলাম কেমন ধরনের টিম আমরা হয়ে উঠতে পারি। তবে আমরা নুইয়ে পড়ছি না। হারার অনুভূতি মোটেই ভাল হয় না। তবে এই হার থেকে আমরা শিক্ষা নেব। ঘরের মাঠে গোয়ার বিরুদ্ধে কলকাতায় খেলতে হবে। এই হার থেকে আমরা ঘুরে দাঁড়াব।”

দু-বছর পর দর্শকদের সামনে আইএসএল-এ বল গড়াল। আর ফুটবল মহোৎসবের সূচনার পারফেক্ট রিংটোন সেট করে দিল হাজারো হাজারো কেরালা ব্লাস্টার্স সমর্থক। হলুদ জার্সিতে মাঠ যেন হলুদ সর্ষে খেত। সেই আবেগী জনতা নাচল, গাইল, কাঁদল প্রিয় দলের জন্য। গ্যালারিতে উঠল মেক্সিক্যান ওয়েভও। দুর্ধর্ষ এই আবহে নিজের মুগ্ধতা গোপন করছেন না কোচ কনস্টানটাইন।

আরও পড়ুন: বাগানের নজরে থাকা স্ট্রাইকারই কাঁপিয়ে দিলেন রোনাল্ডোর Man U-কে, আক্ষেপ কি হচ্ছে কোচ ফেরান্দোর

জানালেন, “কেরালা সমর্থকদের কাছ থেকে অসাধারণ রিসেপশন পেলাম। দু-বছর সমর্থকদের ছাড়া মাঠে নামতে হয়েছে। তারপরে প্ৰথম ম্যাচ যে বিশাল হতে চলেছে, তা প্রত্যাশিতই। ম্যাচের আবহ দেখেই তা স্পষ্ট হয়ে যায়। অবিশ্বাস্য একটা পরিবেশ তৈরি হয়েছিল। মনেই হচ্ছিল না ভারতে ফুটবল খেলছি আমরা। সত্যি বিশ্বাস হচ্ছিল না। এই আবেগ থেকে সেরাটা খুঁজে বের করতে পারলেই ইন্ডিয়া হয়ত আগামী দু-তিন বছরের মধ্যে এশিয়া কাপে, ভবিষ্যতে বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জন করতে পারবে। তবে তার আগে একাধিক বিষয়ে উন্নতি করতে হবে।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Sports news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Isl 2022 east bengal coach promises to learn from defeat against kerala blasters