বড় খবর

শুধু বিশ্ব নয়, চন্দ্রাভিযানেও করোনা বিপত্তি

নাসার তরফে শুক্রবার থেকে কর্মচারীদের বাড়ি থেকে কাজ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

অলংকরণ অভিজিত্্ বিশ্বাস
করোনাভাইরাস অতিমারীর আকার নিয়েছে পৃথিবীতে। যারা আঁচ পড়তে চলেছে চন্দ্র অভিযানের পরিকল্পনায়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মহাকাশ সংস্থার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, মহাকাশচারী কে চাঁদে পৌঁছে দিতে রকেট তৈরি ও মহাকাশযান উৎক্ষেপণের কাজ চলছিল। করোনা ভাইরাসের কারনে সেই সমস্ত কাজ সাময়িকভাবে স্থগিত রাখা হয়েছে।

ট্রাম্প প্রশাসন ২০২৪ সালে পরবর্তী চন্দ্র অভিযানের লক্ষ্যে স্থির হয়েছে। কিন্তু করোনাভাইরাস এর জেরে রাতারাতি কাজ বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছে নাসা। জনবসতি থেকে ৪৫ মাইল দূরে মিসিসিপিতে স্পেস সেন্টারে চলছিল পরীক্ষামূলক কাজ।

আরও পড়ুন:করোনার জেরে বেড়েছে হোয়াটসঅ্যাপ কলিং, চিন্তায় কপালে ভাঁজ ফেসবুকের

মিসিসিপির স্ট্যানিশ স্পেস স্টেশনের কর্মীদের মধ্যে একজনের করোনাভাইরাস পজিটিভ পাওয়া গিয়েছে। মিচাউডে এখনো কোনো নিশ্চিত ঘটনা পাওয়া না গেলেও, নিউ অর্লিন্স অঞ্চলে সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা গত কয়েক দিনে দ্রুত হারে বেড়েছে। এই  জায়গাতেই মহাকাশযানের পরীক্ষামূলক কাজ করা হয়। কাজেই নাসা আপাতত স্ট্যানিশ স্পেস সেন্টারে “শাটডাউন” ঘোষণা করেছে।

প্রসঙ্গত, বিশ্ব বাজারে অর্থনৈতিক অবস্থা খুবই খারাপ। কাজেই তার কোপ পড়তে চলেছে নাসার পরবর্তী মিশন গুলিতে। তাই এই মুহূর্তে কাজে বিলম্ব করা একেবারেই যথাযথ সিদ্ধান্ত নয়। কিন্তু, যারা এই মিশনগুলোর সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন, সর্বপ্রথম তাদের স্বাস্থ্য ও বিপদের কথা চিন্তা করতে হচ্ছে। সুতরাং প্রয়োজনীয় কাজ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নাসা।

আরও পড়ুন:বলয়গ্রাস গ্রহণ, ঘোষিত হল দিনক্ষণ

ইতিমধ্যে নাসা সেন্টারে দুজন কর্মচারীর করোনা ভাইরাসে পজেটিভ পাওয়া গিয়েছে। তাই নাসার তরফে শুক্রবার থেকে কর্মচারীদের বাড়ি থেকে কাজ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

Get the latest Bengali news and Technology news here. You can also read all the Technology news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Coronavirus delays work on nasas moon rocket and capsule

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com