scorecardresearch

বড় খবর

Telegram-এর সেরা কয়েকটি ফিচার যেগুলি আপনি WhatsApp-এ পাবেন না!

এমন ফিচার যা WhatsApp-কেও হার মানাবে!

Telegram-এর জনপ্রিয় সেরা ফিচার গুলি একবার দেখে নিন

Telegram প্রতি মাসে নতুন ফিচার যোগ করে চলেছে। এবং অ্যাপকে ধীরে ধীরে ইউজারদের কাছে আরো আকর্ষক করে তুলছে। এবং এটির জনপ্রিয়তা এবং ব্যবহার বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে ভারতে এই বছর Telegram ইউজারদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। Telegram তার ইউজারদের জন্য এমন অনেক ফিচার নিয়ে এসেছে যা আমরা WhatsApp-এ দেখতে পাই না। তার মধ্যে কতগুলি হল, স্ক্রিন শেয়ারিং, শিডিউল মেসেজ, ব্যক্তিগত ক্লাউড স্টোরেজ, চ্যাট ফোল্ডার ইত্যাদি। আমরা আশা করব এই ফিচারগুলি শিঘ্রই WhatsApp-এ দেখতে পাব। এখন এমন কতগুলি Telegram ফিচার সম্মন্ধে আলোচনা করব যেগুলি হয়তো আপনার কাছেও অজানা। আসুন দেখেনি সেরা Telegram-ফিচারগুলি।

চ্যাট ফোল্ডার

এটি Telegram-এর একটি দুর্দান্ত বৈশিষ্ট্য কারণ টেলিগ্রাম কেবল একটি মেসেজিং অ্যাপ নয়, এটি একটি ওপেন সোর্স প্ল্যাটফর্ম, যে সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম মুলত জনসাধারণের আলাপ-আলোচনার জন্য ব্যবহৃত হয় সেই সঙ্গে একমুখী সম্প্রচার যোগাযোগের মাধ্যম হিসাবেও Telegram-এর জুড়ি মেলা ভার। চ্যাট ফোল্ডার অপশনের মাধ্যমে আপনি সহজেই আপনার চয়েস অনুসারে পরিবার, বন্ধুবান্ধব, অফিস কলিগস প্রত্যকের জন্য আলাদা ফোল্ডার তৈরি করতে পারেন এবং তারপরে আপনার যেকোনও চ্যাটে দ্রুত প্রবেশ করতে ট্যাবের মধ্যে সোয়াইপ করতে পারেন। সেটিংস বিভাগে একটি “ফোল্ডার” অপশন রয়েছে যেটি আপনাকে অফিস, পরিবার, বধু-বান্ধব ইত্যাদির জন্য আলাদা আলাদা ট্যাব তৈরির বিকল্প দেয়।

আপনি এটি করার জন্য ফোল্ডার তৈরি করুন (Create Folder) এই বিকল্পে ট্যাপ করুন। আপনি সেখানে একটি চ্যাট যুক্ত করুন (Add Chats) বাটন লক্ষ করবেন। আপনি যদি ফোল্ডারের নাম “হোম” দেন তাহলে আপনি পরিবারের সকল ব্যাক্তির চ্যাট সেই ফোল্ডারে অ্যাড করে রাখতে পারেন। একবার এটি সম্পন্ন করলে Telegram আপনাকে দুটি ভিন্ন ট্যাব দেখাবে। একটি হবে মুল তালিকার চ্যাট এবং একটি সম্পূর্ণ আলাদা “হোম” চ্যাট। যে ফোল্ডারটি আপনি আলাদা ভাবে তৈরি করেছেন পরিবারের ব্যাক্তিদের চ্যাটগুলি আলাদা করে রাখার জন্য। এভাবে আলাদা করা চ্যাট ফোল্ডারগুলি থেকে আপনি সহজেই আপনার প্রিয়জনের চ্যাটগুলি খুব দ্রুত খুঁজে পেতে পারবেন একই সঙ্গে স্ক্রিনের শীর্ষে গুরুত্বপূর্ণ চ্যাটগুলি খুঁজে পেতে আপনি চ্যাটগুলি পিন করতে পারেন।

ভিডিও স্ক্রিন শেয়ারিং

Telegram- আপনাকে আপনার ভিডিও কল চলাকালীন আপনার ডিভাইসের স্ক্রিন শেয়ার করতে দেয়। এই বৈশিষ্ট্যটি শুধুমাত্র গ্রুপ ভিডিও কলের জন্য উপলব্ধ। আপনাকে কেবল একটি ভিডিও কল শুরু করতে হবে এবং থ্রি-ডট বাটনে ক্লিক করতে হবে যেটি “ভিডিও চ্যাট” অপশনে রয়েছে। তারপরে Telegram কয়েকটি বিকল্প প্রদর্শন করবে, যার মধ্যে থেকে আপনাকে স্ক্রিন শেয়ারিং আপনাকে নির্বাচন করতে হবে। অ্যাপটি তখন দুটি ছোট স্ক্রিন দেখাবে। একটি স্ক্রিন শেয়ারিং এবং অপরটিতে আপনি নিজেকে দেখতে পাবেন। যেকোন স্ক্রিনে আপনি ডবল ট্যাপ করলেই সেটি বড় আকারে দেখা যাবে। আবার সেই স্ক্রিনকে ছোট করতে একই পদ্ধতি অনুসরণ করুন। অ্যাপটি আপনাকে ভয়েস এবং গ্রুপ ভিডিও উভয় কল করার সুবিধা দিয়ে থাকে।

ক্লাউড স্টোরেজ

Telegram- একটি ক্লাউড-ভিত্তিক মেসেঞ্জার। ইউজার তাদের ট্যাবলেট এবং কম্পিউটার সহ একসঙ্গে বিভিন্ন ডিভাইস থেকে তাদের মেসেজগুলি অ্যাক্সেস করতে পারেন। অ্যাপটিতে একটি ব্যক্তিগত “সংরক্ষিত বার্তা”( Saved Messages) বিভাগ রয়েছে, যেটি ইউজাররা অনেকটা নোটপ্যাডের মতো ব্যবহার করতে পারেন। ইউজাররা তাদের গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ ছবি ফাইল এখানে সেভ করে রাখতে পারেন। যেখানে সেগুলি সম্পূর্ণ ভাবেই সুরক্ষিত থাকবে। আপনি যখন মেনুবারে জাবেন তখন এই ফিচারটি দেখতে পাবেন। সংরক্ষিত বার্তা ফিচারটি আপনার ফোন, ল্যাপটপ এবং অন্য যেকোনও ডিভাইসে আপনি অ্যাক্সেস করতে পারবেন যেখানে আপনার অ্যাকাউন্ট লগ ইন করা আছে। Telegram-এ আপনি হাই রেজোলিউশনের ছবি, ভিডিও এবং ২ জিবি পর্যন্ত ফাইল শেয়ার করতে পারেন যা আপনি WhatsApp-এ করতে পারবেন না।

আরও পড়ুন জেনে রাখুন Telegram-এর সাতটি ফিচার, করে তুলুন ইউজার ফ্রেন্ডলি

শিডিউল মেসেজ

এটি Telegram-এর অন্যতম সেরা ফিচার। এই  ফিচারের মাধ্যেম ইউজারার সহজেই অন্য ইউজারদের মেসেজ পাঠাতে পারেন তাদের কোনভাবে বিরক্ত না করেই। তার জন্য ইউজারদের কাছে শিডিউল মেসেজ ফিচারটি রয়েছে। আপনি কোনও মেসেজ লিখে তা সর্বাধিক ৪৮ ঘন্টা সময়ের মধ্যে যেকোনও সময়ে অন্য কোনও Telegram-ইউজারদের কাছে পাঠাতে পারেন। বৈশিষ্ট্যটি ব্যক্তিগত চ্যাট এবং গ্রুপ চ্যাট উভয় ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। আপনি কোনও মেসেজ টাইপ করার পর সেন্ড আইকনে লং প্রেস করতে হবে তখনই আপনি শিডিউল মেসেজ অপশনটি দেখতে পাবেন। আপনি আপনার সুবিধামতো সময় দিন ইত্যাদি নির্বাচন করে ট্যাপ করুন কনফার্ম শিডিউল অপশনে।

আর্কাইভ বক্স

WhatsApp আপনাকে মেসেজগুলি আর্কাইভ করার সুযোগ দেয় কিন্তু Telegram আপনাকে হাইড করা চ্যাটগুলি অ্যাক্সেস করার জন্য আরও ভাল অভিজ্ঞতা প্রদান করে থাকে। WhatsApp-এ আর্কাইভ বিভাগটি খুঁজে পেতে আপনাকে চ্যাট উইন্ডোর শেষ পর্যন্ত স্ক্রল করতে হবে। এই অপশন তাৎক্ষণিক খুঁজে পাওয়ার কোনও বিকল্প নেই। অন্যদিকে Telegram আপনাকে মেন লিস্টের নিচে একবার সোয়াইপ করেই আর্কাইভ সেকশনে প্রবেশের সুযোগ দেয়। আর্কাইভ বক্সটি তখন স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্ক্রিনের উপরিভাবে চলে আসবে। আপনি যেই নিচের দিকে সামান্য স্ক্রল করবেন তখনই এটি আবার স্ক্রিন থেকে হাইড হয়ে যাবে।  

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Technology news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Technology telegrams unique feature you wont see these on whatsapp