scorecardresearch

বড় খবর

পাহাড়ের গা ঘেঁষে ছুটে চলল ১০০ কোচের ট্রেন, বিরল এই দৃশ্যে মজে নেটদুনিয়া, ভিডিও ভাইরাল

লাল রঙের এই সুন্দর ট্রেনটি ২২টি পাহাড়ি টানেল এবং ৪৮টি সেতু অতিক্রম করে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছায়।

পাহাড়ের গা ঘেঁষে ছুটে চলল ১০০ কোচের ট্রেন, বিরল এই দৃশ্যে মজে নেটদুনিয়া, ভিডিও ভাইরাল
বৃহত্তম ট্রেনে চেপে আল্পস পর্বতের নৈসর্গিক সৌন্দর্য উপভোগ করেন ১৫০ জন পর্যটক।

পাহাড়ের গা বেয়ে ছুটে চলেছে ১০০ কোচের যাত্রীবাহী ট্রেন। আর এমনই এক বিরল ঘটনা তোলপাড় ফেলেছে নেটদুনিয়ায়। বিশ্বের দীর্ঘতম যাত্রীবাহী ট্রেনের রেকর্ড গড়েছে সুইজারল্যান্ড।

শনিবার আল্পস পর্বতের গা ঘেঁষে ছুটে চলা এই ট্রেন দেখতে উৎসাহী মানুষের ভিড় ছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই ট্রেনের দৈর্ঘ্য প্রায় দু’কিলোমিটার। সুইজারল্যান্ডের বিখ্যাত রেল কোম্পানি ১৭৫ তম বার্ষিকীতে বিশ্বের দীর্ঘতম যাত্রীবাহী ট্রেনের ‘বিশ্ব রেকর্ড’ গড়েছে। এই ট্রেনটির দৈর্ঘ্য ১৯১০ মিটার। ট্রেনটি ১০০ টি কোচের সমন্বয়ে তৈরি। 

বৃহত্তম ট্রেনে চেপে আল্পস পর্বতের নৈসর্গিক সৌন্দর্য উপভোগ করেন ১৫০ জন পর্যটক। আল্পসের মত এত দুর্গম পথে ২৫ কিলোমিটার যাত্রা করে ট্রেনটি। মাত্র এক ঘণ্টার মধ্যে ট্রেনটি তার গন্তব্যে পৌঁছায়। বিপুল সংখ্যক এই ট্রেনটি দেখতে যাত্রাপথের মাঝখানে পাহাড়ের ওপর মানুষ বসে ছিলেন। মানুষ জন মোবাইল ক্যামেরা হাতে নিয়ে বসেছিলেন বিরল এই ঘটনা রেকর্ড করার জন্য।

আরও পড়ুন : [ রেল কোচকে বদলে ফেলা হল রেস্তোরাঁয়! ঘরের কাছেই জিভে জল আনা খাবার খেতে যাচ্ছেন তো? ]

লাল রঙের এই সুন্দর ট্রেনটি ২২টি পাহাড়ি টানেল এবং ৪৮টি সেতু অতিক্রম করে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছায়।  সুইস মিডিয়া ঘটনাটি সরাসরি সম্প্রচারও করে। উল্লেখ্য, এই আল্পসের এই বিপজ্জনক এবং সুন্দর রেলপথটিকে ২০০৮ সালে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ ঘোষণা করেছে ইউনেস্কো।

সেখানেই ৬,২৬৬ ফুট দীর্ঘ ট্রেনটি যাত্রা করে, যা যাবতীয় পুরনো রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এক আধিকারিকের কথায়, “দীর্ঘ এই ট্রেনকে নিরাপদে ছুটিয়ে নিয়ে যাওয়াটাই বড় চ্যালেঞ্জ। সাতজন লোকোপাইলট এবং ২৫ জন ইঞ্জিনিয়ারের সাহায্যে ট্রেনটি দুর্গম এই পাহাড়ি পথে ছুটে চলে” । 

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Viral news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Switzerland now home to worlds longest passenger train with 100 coaches