বড় খবর

প্রসাদ খেলেই পালাবে ভাইরাস! ‘করোনা-মাতা’র মন্দিরে উপচে পড়ছে ভক্তদের ভিড়

Covid-19 in India: কুসংস্কারের জেরে কোভিড প্রোটোকলের দফারফা অবস্থা গ্রামে।

Coronavirus, Covid-19 in India
উত্তরপ্রদেশের প্রতাপগড়ের শুক্লাপুর গ্রামে আজব মন্দির নিয়ে উৎসাহ-উন্মাদনা তুঙ্গে গ্রামবাসীদের।

পুজো দিলেই হবে, মায়ের আশীর্বাদে ভ্যানিশ হয়ে যাবে করোনাভাইরাস! উত্তরপ্রদেশের প্রতাপগড়ের শুক্লাপুর গ্রামে আজব মন্দির নিয়ে উৎসাহ-উন্মাদনা তুঙ্গে গ্রামবাসীদের। নীম গাছের তলায় করোনা মাতার মন্দির প্রতিষ্ঠা করেছেন তাঁরা। সেই মন্দিরে পুজো দিলে মায়ের আশীর্বাদে দূর হবে করোনা, এমনই বিশ্বাস আম আদমির।

সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল এই ‘করোনা-মাতা’। মুখে সবুজ মাস্ক পরা মূর্তি, দেবীর অপার মহিমায় না কি পালাবে করোনা! সাধারণ গ্রামবাসী এই বিশ্বাসে চাঁদা তুলে মন্দিরও গড়ে ফেলেছেন। তাঁদের বিশ্বাস, দেবীর সামনে প্রার্থনা করলে, পুজো দিলে করোনা আক্রান্তদের সারিয়ে তুলবেন তিনি।

আরও পড়ুন অ্যাম্বুলেন্সে অসুস্থ মালকিন, প্রাণ বাজি রেখে হাসপাতাল পর্যন্ত দৌড়ল পোষ্য কুকুর!

অন্ধবিশ্বাসের জেরে ভক্তদের নিয়ে গাঁ উজাড় অবস্থা। রোজই ভিড় বাড়ছে এই মন্দিরে। পুরোহিতের দেওয়ার দেবীর প্রসাদের জন্য রীতিমতো কাড়াকাড়ি পড়ে যাওয়ার অবস্থা। তবে প্রশাসন নড়েচড়ে বসেছে ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর। কুসংস্কারের জেরে কোভিড প্রোটোকলের দফারফা অবস্থা গ্রামে।

আরও পড়ুন ১৩ জুন মমতা ব্যানার্জির বিয়ে! পাত্র কে, দেখুন বিয়ের কার্ডে

করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামীণ ভারত। সেই পরিস্থিতিতে গ্রামবাসীরা যদি এমন অন্ধবিশ্বাসে ভর করে চলেন তাহলে প্রশাসনকে আর দেখতে হবে না। বিশ্বাস ভাঙাতে কম খাটনি হবে না! তবে উত্তরপ্রদেশেই প্রথম নয়, আগের বছর তামিলনাড়ুর কোয়েম্বাটোরে এবং কর্ণাটকের মধুবনহাল্লি গ্রামে করোনা-মাতার মন্দির তৈরি হয়েছিল।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Viral news here. You can also read all the Viral news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Up villagers set up corona mata temple to seek divine blessings to ward off covid 19

Next Story
Viral Video: অ্যাম্বুলেন্সে অসুস্থ মালকিন, প্রাণ বাজি রেখে হাসপাতাল পর্যন্ত দৌড়ল পোষ্য কুকুর!Dog Viral Video,Viral Video
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com