scorecardresearch

বড় খবর

সাইকেলে চেপে জনতার দুয়ারে পৌঁছে বিজয়া সারলেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

রাজ্যের মন্ত্রী দুয়ারে বিজয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে যাওয়ায় আপ্লুত পূর্বস্থলীর বাসিন্দারা।

সাইকেলে চেপে জনতার দুয়ারে পৌঁছে বিজয়া সারলেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

রাজ্যের সরকার যখন জনতার দুয়ারে পৌঁছে যাচ্ছে, তাহলে নেতা-মন্ত্রীরা বাদ যাবেন কেন! একইভাবে নিজের বিধানসভা এলাকার বাসিন্দারের বিজয়ার শুভেচ্ছা ও প্রণাম জানানোর অভিনব পন্থা নিলেন রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। রবিবার লালবাতি গাড়ি ছেড়ে সাইকেলে চেপে পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলী দক্ষিণ বিধানসভার পাড়ায় পাড়ায় পৌছে গেলেন স্বপনবাবু। প্রবীণদের জানালেন শ্রদ্ধা ও প্রণাম। ছোটদের জানালেন শুভেচ্ছা। সেইসঙ্গে সবাইকে মিষ্টি মুখও করালেন। বিজয়া করার ফাঁকে ফাঁকে ডেঙ্গু ও করোনা নিয়ে সচেতনতা প্রচারও চালিয়ে যান মন্ত্রী। বিলি করেন মাস্ক ও স্যানিটাইজার। রাজ্যের মন্ত্রী দুয়ারে বিজয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে যাওয়ায় আপ্লুত পূর্বস্থলীর বাসিন্দারা।

বাঙালির সর্বশ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজো শেষ হতেই গোটা বাংলা জুড়ে শুরু হয়ে গিয়েছে বিজয়ার শুভেচ্ছা বিনিময়ের পালা। তাই নিজের বিধানসভা এলাকার বাসিন্দারে শুভেচ্ছা জানানোর কাজে পিছিয়ে থাকতে চাননি মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। এদিন তাঁর বিখ্যাত কায়দায় হ্যান্ডমাইক কাঁধে ঝুলিয়ে নিয়ে সাইকেল চালিয়ে মন্ত্রীমশাই পূর্বস্থলী ১ ব্লকের হেমাতপুর বারোয়ারিতলা, শ্রীরামপুর-সহ বিভিন্ন এলাকায় পৌছে যান। বাসিন্দাদের সঙ্গে সৌজন্য বিনিময় করেন। সবাইকে বিজয়ার শুভেচ্ছা, প্রণাম জানানোর পাশাপাশি সবার পরিবারের খোঁজখবরও নেন। সাইকেলের সামনে খাঁচায় থাকা লাড্ডু- মিষ্টি বের করে সবার হাতে তুলে দেন।

মন্ত্রী এদিন একেবারে দুয়ারে এসে বিজয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে যাওয়ায় যারপরনাই আপ্লুত পূর্বস্থলীর বৃদ্ধা ধর্মবালা সিংহ, পরিতোষ বিশ্বাস প্রমুখরা। তাঁরা বলেন, “স্বপন দেবনাথ সারা বছরই নিজের বিধানসভা এলাকার প্রতিটি মানুষের খোঁজ খবর নেন। এদিনও বিজয়ার শুভেচ্ছা, ভালবাসা ও প্রণাম জানাতে তিনি সকলের দুয়ারে উপস্থিত হন। রাজ্যের একজন মন্ত্রী হয়েও স্বপনবাবু এদিন যে ভাবে এলাকার মানুষের দুয়ারে দুয়ারে হাজির হয়ে বিজয়ার শুভেচ্ছা, প্রণাম জানালেন তা তাঁদের অভিভূত করেছে বলে মন্তব্য করেন বৃদ্ধা ধর্মবালা সিংহ।

আরও পড়ুন প্রকৃতির রোষে উত্তরাখণ্ড, কেদারনাথে আটকে বাঙালি পর্যটকরা

স্বপনবাবু জানান, একসময় পাঁয়ে হেঁটে মানুষের দরবারে যেতেন। এখন বয়স হওয়ায় আর পায়ে হেঁটে বেশি দূর আর যাতায়াত করতে পারেন না। সেই কারণে ব্যাটারি চালিত একটি সাইকেলও কিনেছেন। সেই সাইকেলে চড়েই মানুষের কাছে তিনি পৌঁছে যান। তিনি জানালেন, “এদিন গুরুজনদের বিজয়ার প্রণাম ও ছোটদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। সবার সঙ্গে একটু আড্ডাও মেরেছেন। পাশাপাশি করোনা ও ডেঙ্গু নিয়ে সচেতনতা প্রচারও চালিয়েছেন। শুভেচ্ছা ও শ্রদ্ধা জানানো কাজটা লক্ষ্মীপুজো, কালিপুজো, জগদ্ধাত্রী ও রাস উৎসব পর্যন্ত চালিয়ে যাবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Bengal minister swapan debnath clycled to reach people greets them for festive season