scorecardresearch

বড় খবর

হাসপাতালের ‘রেফার রোগে’ ফুঁসছেন মুখ্যমন্ত্রী, স্থানান্তরে প্রসূতি-মৃত্যুতে নামতে পারে শাস্তির খাঁড়া

সরকারি হাসপাতালের ‘রেফার রোগে’ বিরক্ত মুখ্যমন্ত্রী।

হাসপাতালের ‘রেফার রোগে’ ফুঁসছেন মুখ্যমন্ত্রী, স্থানান্তরে প্রসূতি-মৃত্যুতে নামতে পারে শাস্তির খাঁড়া
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজ্যের একাধিক জেলার সরকারি হাসপাতালের ‘রেফার রোগ’ নিয়ে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জেলাগুলি থেকে শহর কলকাতার হাসপাতালে রেফারের প্রবণতা বাড়তে থাকায় সোমবার নবান্নের বৈঠকে যারপরনাই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ‘রেফার রোগ’ কমাতে স্বাস্থ্যসচিবকে আরও কড়া হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ‘রেফারের জেরে গর্ভবতীর মৃত্যু হলে যে রেফার করবে দায় তার’, সাফ বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর।

জেলার হাসপাতাগুলি থেকে প্রায়ই নানা কারণে রোগীদের কলকাতার হাসপাতালে রেফার করে দেওয়া হয়। বিশেষ করে গর্ভবতীদের রেফারের আগে এবার আরও সতর্ক থাকার পরামর্শ মুখ্যমন্ত্রীর। জেলার হাসপাতালগুলি থেকে গর্ভবতীদের রেফার করে দেওয়ার জেরে নানা সময় নানা বিপত্তি ঘটছে। কোথাও পথেই মৃত্যু হচ্ছে গর্ভবতীদের, কোথাও আবার সংকটপন্নদের পথেই অবৈজ্ঞানিক প্রথায় প্রসব করাতে গিয়ে ঘটছে মৃত্যু।

জেলার হাসপাতালগুলি থেকে গর্ভবতীদের অন্যত্র রেফার করে দেওয়ার প্রবণতা বাড়তে থাকায় এদিন ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ”এবার থেকে যে রেফার করবে দায়িত্ব তাঁর। যে হাসপাতালগুলি থেকে রেফার করা হবে গর্ভবতীর মৃত্যু হলে দায়িত্ব তাঁদের। কেন এক জায়গা থেকে আর এক জায়গায় রেফার? জেলা থেকে গর্ভবতীদের রেফার করে দেওয়া হচ্ছে কেন?”

রেফারের জেরে একাধিক ক্ষেত্রে গর্ভবতীদের মৃত্যুর খবর সামনে আসায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এক্ষেত্রে চিকিৎসকদের একাংশের তীব্র সমালোচনা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ”চিকিৎসায় গাফিলতি অপরাধ। গর্ভবতীদের কেন রেফার করা হচ্ছে? রেফারে প্রবণতা কেন কমছে না? প্রয়োজন হলে সুপারকে বলে ব্যবস্থা করতে হবে।” হাসপাতালগুলির ‘রেফার রোগ’ কমাতে রাজ্যের স্বাস্থ্যসচিবকে আরও কড়া হতে নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন- কলকাতার জনপ্রিয় পর্যটনস্থলে ভয়ঙ্কর নজরদারির অভাব! চটে লাল মমতা, মেয়র ফিরহাদকে হুঁশিয়ারি

উল্লেখ্য, জেলার হাসপাতালগুলি থেকে গর্ভবতী মহিলাদের রেফার করার ছবিটা নতুন নয়। প্রায়ই জেলার হাসপাতালগুলি থেকে গর্ভবতী মহিলাদের একাংশকে কলকাতার হাসপাতালে রেফার করে দেওয়া হয়। বিশেষজ্ঞ মহলের দাবি, অনেক ক্ষেত্রেই সঙ্গত কারণ ছাড়াই গর্ভবতীদের রেফার করে দেওয়া হয়। দূর-দূরান্ত থেকে গাড়ি জোগাড় করে কলকাতার হাসপাতালে গর্ভবতীদের আনার ক্ষেত্রে প্রকট সমস্যায় পড়তে হয় তাঁদের আত্নীয়- পরিজনেদের। অনেক ক্ষেত্রেই পথের ধকল সইতে না পেরে প্রাণ হারান গর্ভবতী। এর আগেও ‘রেফার রোগ’ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু তাতে কাজ না হওয়ায় আজ ফের একবার জেলার সরকারি হাসপাতালের ‘রেফার রোগ’ নিয়ে কড়া বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর।

এরই পাশাপাশি স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের অপব্যবহার নিয়েও এদিন ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গিয়েছে মুখ্যমন্ত্রীকে। স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের অপব্যবহারে উদ্বিগ্ন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে উদ্বেগ প্রকাশের পাশাপাশি তাঁর স্বপ্নের প্রকল্পের অপব্যবহারে কড়া পদক্ষেপেরও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ”স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের অপব্যবহার করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের অপব্যবহার হলে কড়া পদক্ষেপ। যে হাসপাতাল করবে তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করা হবে।”

আরও পড়ুন- পঞ্চায়েতের আগে বিরাট ধাক্কা শাসকের! ঝালদা পুরসভা হাতছাড়া তৃণমূলের

এছাড়াও বেসরকারি হাসপাতালের একাংশের স্বাস্থ্যসাথী কার্ড গ্রহণের ক্ষেত্রে গড়িমশি প্রসঙ্গেও এদিন কড়া বার্তা দিয়ে রেখেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ”বেসরকারি হাসপাতাল স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না নিলে লাইসেন্স বাতিল করা হবে।” স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পটি মসৃণ গতিতে চালাতে এবার থেকে প্রতি মাসে বৈঠকেরও নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। জেলাশাসকদের স্বাস্থ্যসাথী নিয়ে মাসে একবার করে বৈঠক করতে নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Mamata banerjee upset on reffer tendency of a part of govt hospitals