scorecardresearch

‘মানবাধিকার ভেন্টিলেশনে, শাসকের শাসন, আইনের নয়’, ফের তোপ রাজ্যপালের

জাতীয় মানবাধিকার দিবসে টুইট রাজ্যপালের। নিশানা করেছেন রাজ্য প্রশাসনের কর্তাদের একাংশকে।

mamata banerjee called to jagdeep dhankar on bengal assembly midnight issue
ধনকড়কে ফোন মমতার।

আবারও রাজ্যের সঙ্গে সংঘাতে রাজ্যপাল। জাতীয় মানবাধিকার দিবসে রাজ্য প্রশাসনকে টুইটে বেনজির আক্রমণ জগদীপ ধনকড়ের। ”উদ্বেগজনক মানবাধিকার লঙ্ঘন। শুধুমাত্র শাসকের শাসন, আইনের নয়।” টুইটে রাজ্য সরকারকে নিশানা রাজ্যপালের। ফের একবার রাজ্য প্রশাসনের কর্তাদের একাংশের বিরুদ্ধে শাসকদলের হয়ে কাজ করার অভিযোগ রাজ্যপালের।

কলকাতা পুরভোটের ঠিক মুখে সংঘাত আরও বাড়ল। আবারও রাজ্যপালের নিশানায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসন। জাতীয় মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে টুইট রাজ্যপালের। রাজ্য প্রশাসনের একাংশের আমলারা শাসকদলের হয়ে কাজ করছেন বলে ফের অভিযোগ জগদীপ ধনকড়ের। টুইটে একটি ভিডিও আপলোড করে তিনি এদিন বলেন, ”পশ্চিমবাংলায় মানবাধিকার লুণ্ঠিত হচ্ছে। এখানকার শাসনব্যবস্থা ও প্রশাসনিক কর্তারা রাজনৈতিক দলের হয়ে কাজ করছেন। এখানকার জনগণের মনে আতঙ্ক রয়েছে। আতঙ্ক এতটাই যে কেউ মুখ খুলতেও সাহস করছেন না।”

এরই পাশাপাশি রাজ্য প্রশাসনকে বিঁধে ধনকড় আরও বলেন, ”পশ্চিমবঙ্গে মানবাধিকার ভেন্টিলেশনে চলে গিয়েছে। মানবাধিকার দিবসে মানবাধিকার কমিশনের কোনও কর্মসূচি নেই। এটা অনেক বড় একটি সংকেত। সরকারের কাছে ও তার আধিকারিকদের কাছে অনুরোধ, আইনের মধ্যে থেকে কাজ করুন। রাজনৈতিক দলের হয়ে কাজ করবেন না। যে উদ্বেগ আমি লাগাতার ব্যক্ত করে চলেছি, সেদিকে সরকার খেয়াল করবে বলে আমি মনে করি।”

উল্লেখ্য, এর আগেও একাধিক বিষয় নিয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে মতানৈক্য হয়েছে রাজ্যপালের। রাজ্য প্রশাসনের কর্তাদের একাংশকে সরাসরি আক্রমণ করেছেন রাজ্যপাল। সম্প্রতি কলকাতা পুরভোট নিয়েও নিজের মতামত প্রকাশ করেছেন ধনকড়। রাজ্য পুলিশ নয়, কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে পুরভোটের নিরাপত্তার বন্দোবস্তের সওয়াল করেছিলেন রাজ্যপাল। যদিও শেষমেশ রাজ্যপালের সেই সওয়ালে কান পাতেনি রাজ্য নির্বাচন কমিশন। রাজ্য পুলিশ দিয়েই আসন্ন পুরভোট পরিচালনা হবে বলে ঘোষণা করে দেয় কমিশন।

https://platform.twitter.com/widgets.js

লাগাতার রাজ্য সরকারের সমালোচনা করে চলা জগদীপ ধনকড়কে বিজেপির এজেন্ট বলে কটাক্ষ শুনতে হয়েছে বারবার। রাজ্য সরকারের একাধিক মন্ত্রী ও শাসকদলের শীর্ষনেতারা প্রায়ই ধনকড়ের সমালোচনায় মুখ খুলেছেন। এমনকী খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও ধনকড়ের অপসারণের দাবি তুলেছেন। এব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গেও কথা বলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন- দলীয় সাংসদদের সঙ্গ এড়িয়ে মোদী-সাক্ষাতে একলা লকেট

যদিও রাজ্যপাল নিজের অবস্থানেই অনড়। রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে তিনি বারবার নিজের মতামত জানিয়ে রাজ্য প্রশাসনকে ‘সতর্ক’ করে চলেছেন। এবার কলকাতা পুরভোটের ঠিক মুখে জাতীয় মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে রাজ্য সরকারকে নিশানা করলেন ধনকড়।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Worrisome human rights violations governor jagdeep dhankhar criticise west bengal government