বড় খবর


পর্ন ইন্ডাস্ট্রি ছাড়ার পর কোথাও চাকরি পাওয়া মুশকিল হয়েছিল: মিয়া খলিফা

১৯৯৩ সালে লিবিয়ায় জন্ম মিয়া খলিফা ২০০১ সাল থেকে আমেরিকার বাসিন্দা। ২০১৪-র শেষেরদিকে পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে খুব অল্পসময়ের জন্য (তিনমাস) কাজ করেছেন তিনি। মিয়ার কথায়, আত্মসম্মানের খাতিরেই এই পেশা বেছে নিয়েছিলেন তিনি।

mia khalifa
মিয়া খালিফা। ফোটো- মিয়া খালিফার ইনস্টাগ্রাম

প্রাক্তন পর্নস্টার মিয়া খলিফা এদিন কথাল বললেন, পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁর লড়াই নিয়ে এবং কীভাবে অতীত এখনও তাঁর বর্তমানের উপর প্রভাব ফেলেছে। ১৯৯৩ সালে লিবিয়ায় জন্ম মিয়া খালিফা ২০০১ সাল থেকে আমেরিকার বাসিন্দা। ২০১৪-র শেষেরদিকে পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে খুব অল্পসময়ের জন্য (তিনমাস) কাজ করেছেন তিনি। মিয়ার কথায়, আত্মসম্মানের খাতিরেই এই পেশা বেছে নিয়েছিলেন তিনি।

বিবিস-র হার্ডটক শোয়ে তিনি এই পেশা নির্বাচনের কারণ জানিয়েছেন। ”তুমি কোন পরিবারের থেকে এসেছ, সেটা তোমার আত্মসম্মানের জন্য বিচার্য নয়। আসলে আত্মসম্মান কারও প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করেনা”, বলেন মিয়া। তিনি আরও বলেন, ”ছোটবেলা আমার ওজনের জন্য ভুগেছি এবং নিজেকে কখনও পুরুষের দৃষ্টি আকর্ষণের যোগ্য বলে মনে হতনা এবং হঠাৎ করেই কলেজের প্রথমবর্ষে ওজন কমাতে শুরু করি। কিছু পরিবর্তনও করি এবং কলেজ পাশ করার সঙ্গে সঙ্গে একটা বিশাল পার্থক্য আসে। প্রথমবারের জন্য সেই বৈধতা, সেই প্রশংসা পেতে শুরু করি-যেটা আমি যেতে দিতে চাইনি।”

আরও পড়ুন, শরতে নয় শীত আসছে পাভেলের ‘অসুর’

কিন্তু মিয়া যেভাবে চেয়েছিল জীবন সেইভাবে চলেনি। হিজাব পরে তাঁর সেক্সুয়াল ভিডিও পর্নসাইটে ছড়িয়ে যায়। রাতারাতি জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন তিনি। মধ্য-প্রাচ্যের দেশগুলিতে নিন্দার ঝড় ওঠে। এমনকী আইএসআইএস-এর থেকে হুমকিও পান মিয়া। এই একটি দৃশ্য পেশা থেকে বেরিয়ে আসার পরও পিছু ছাড়েনি। ইউটিউবার মেগান অ্যাবটের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে মিয়া বলেন, ”হিজাব সিন করার পরেই আমার জীবনে পরিবর্তন আসে। আইএসআইএসের কাছ থেকে খুনের হুমকিও পান। কেবমাত্র আমেরিকা নয়, বিশ্বের সব জায়গায় খবর ছড়িয়ে যায়। টুইটারে ট্রেন্ডিং, খবরে সর্বত্র।”

মিয়া বলেন, ”মিশর, আফগানিস্তানের মতো মুসলিম অধ্যুষিত দেশে নিষিদ্ধ করা হয় আমাকে। আসলে মুসলিম দেশগুলি ভীষণ বিরক্ত হয়েছিল এবং আমি ক্যাথলিক। ফলে আমার কাছে বিষয়টি ছিল, হ্যাঁ, এটা খারাপ। কিন্তু তারা যেটা বলতে চাইছিলেন, যে দৃশ্যটা শুট করে আক্ষরিক অর্থের পাপ করেছ। তারপরেই প্রাণে মারার হুমকি।”

আরও পড়ুন, এনআরএস কাণ্ড এবার সেলুলয়েডে, নেপথ্য নায়ক অগ্নিদেব

বিশ্ব জুড়ে মিয়ার ভিডিও জনপ্রিয় হচ্ছিল এবং দুনিয়ার তাঁর প্রতি আকর্ষিত হওয়াটাই মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল। ”আমি আইএসআইএসের হুমকিতে আতঙ্কিত ছিলাম না। কিন্তু ভয়ে বাঁচতে চাইছিলাম না। লজ্জায় বাঁচার থেকে বেশি খারাপ ছিল”, ওয়াশিংটন পোস্টকে বলেছিলেন মিয়া।

সবকিছু ছেড়ে প্রাক্তন এই পর্ন তারকা জানিয়েছেন কেবল ১২০০০ ডলার তিনি আয় করেছেন পর্ন ইন্ডাস্ট্রি থেকে। টুইটারেও একথাও জানান তিনি। মিয়া লেখেন, ”মানুষ ভাবে আমি প্রচুর টাকা এই ইন্ডাস্ট্রি থেকে উপার্জন করেছি। তা কিন্তু সত্যি নয়। তবে খারাপটা হয়েছিল ইন্ডাস্ট্রি থেকে বেরিয়ে আসার পর, পর্ন ইন্ডাস্ট্রি ছাড়ার পর কোথাও চাকরি পাওয়া মুশকিল হয়েছিল।”

Read the full story in English 

Web Title: Mia khalifa has lately been speaking about her struggles in the adult industry

Next Story
শরতে নয় শীত আসছে পাভেলের ‘অসুর’ asur first look
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com