scorecardresearch

বড় খবর

সংখ্যালঘুদের জন্য কাজ অপরাধের নয়, শাহের ‘তোষণ’ কটাক্ষের পাল্টা তৃণমূল

দক্ষিণেশ্বরে দাঁড়িয়ে মমতা সরকারের বিরুদ্ধে ‘তোষণ’ রাজনীতির অভিযোগ করেছিলেন অমিত শাহ।

সংখ্যালঘুদের জন্য কাজ অপরাধের নয়, শাহের ‘তোষণ’ কটাক্ষের পাল্টা তৃণমূল

পবিত্রভূমি দক্ষিণেশ্বরে দাঁড়িয়ে মমতা সরকারের বিরুদ্ধে ‘তোষণ’ রাজনীতির অভিযোগ করেছিলেন অমিত শাহ। যা নস্যাৎ করেছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল। সংখ্যালধুদের জন্য কাজ করা কোনও অপরাধ নয় বলে দাবি জোড়া-ফুল শিবিরেরে।

বর্ষীয়ান তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেছেন, ‘তুষ্টিকরণের রাজনীতি বলতে অমিত শাহ কী বোঝাতে চাইছেন? উনি কী বিজেপি নেতা হিসাবে বলছেন? নাকি কেন্দ্রীয় স্বারাষ্ট্রমন্ত্রী হিসাবে এই অভিযোগ করছেন? সরকারের কাছে সব সম্প্রদায়ই সমান। সংখ্যালঘুদের জন্য উন্নয়নের কাজ করা মানেই তা অপরাধ বলে আমি মনে করি না।’

শুক্রবার দক্ষিণেশ্বরে যান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সেখানেই তিনি বলেছিলেন, ‘বাংলার এই পবিত্র ভূমি রামকৃষ্ণ, স্বামী বিবেকানন্দ, প্রণবানন্দ ঠাকুর, শ্রী অরবিন্দের। কিন্তু এখানেই তুষ্টিকরণের রাজনীতি চলছে। এতে বাংলার গৌরব খুণ্ণ হচ্ছে। আধ্যাত্মিক-ও ধর্মীয় চেতনায় দেশের শীর্ষে ছিল বাংলা। সেই গৌরব আবার ফিরিয়ে আনতে হবে। রাজ্যবাসীকে বিচার-বিবেচনার উপর বিশেষ নজর দিয়ে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানাব।’

এই প্রথম নয়। এর আগেও এ রাজ্যে এসে একাধিকবার শাসক তৃণমূলের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ করেছিলেন শাহ। তবে, ২১শে ভোটের আগে পবিত্র দক্ষিণেশ্বর মন্দির প্রাঙ্গনে দাঁড়িয়ে অমিত শাহের এই অভিযোগের অন্যমাত্রায় গুরুত্ববাহী বলেই মত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।

বঙ্গ সফরের দু’দিনই আদিবাসী ও মতুয়া পরিবারের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজন সেরেছেন অমিত শাহ। যা নিয়ে যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যেয়র তোপের মুখে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদের কটাক্ষ, তফসিলি ও সংশ্লিষ্ট পরিবারগুলিকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করছেন শাহ। টুইটবার্তায় অভইষেক জানিয়েছেন, ‘তফসিলি ও সংশ্লিষ্ট পরিবারগুলিকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এমনকী ওই পরিবারগুলোর সঙ্গে একবারও কথা বলারও প্রয়োজন বোধ করা হয়নি। এটাই অমিত শাহের মধ্যাহ্নভোজনের নেপথ্যের বাস্তব। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী- আপনি কি শুধু ছবি তুলতে এখানে এসেছেন।’

এ প্রসঙ্গেই রাজ্যের মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম বলেছেন, ‘বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলোতে আদিবাসী, দলিত ও সমাজের প্রান্তিক মানুষেরা শোষিত হচ্ছেন। তাঁদের উপর অত্যাচারের ঘটনা বাড়ছে। তাই আদিবাসী-মতুয়া পরিবারে শাহের মধ্যাহ্নভোজন আসলে নির্বাচনী চমক ছাড়া অন্য কিছু নয়। এসব করে প্রত্যেকবার মানুষকে বোকা বানানো যায় না।’

তোপ, পাল্টা তোপের মাঝেই অবশ্য তৃণমূল সরকারের দুর্নীতি, অপশাসনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। দাবি করেছেন, ২০২১ বিধায়সভায় ২০০-র বেশি আসন নিয়ে বাংলা দখল করবে বিজেপি।

Read in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: No crime to work for minorities tmc hits back on amit shah appeasement politics