scorecardresearch

বুমরাদের বাউন্সারের কড়াইয়ে ফেলায় সপাটে আক্রমণ! ভনের রোষানলে দেশের তারকারাই

বুমরাদের বাউন্সারের কড়াইয়ে ফেলার স্ট্র্যাটেজি মোটেই কাজে আসেনি। ২০৯/৮ থেকে ভারত শেষপর্যন্ত ২৯৮/৮ পর্যন্ত টেনে নিয়ে যায় বুমরা-শামির ব্যাটে ভর করে।

ভারতের বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের বাউন্সার কৌশল পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। ম্যাচ জিতে বুঝিয়ে দিয়েছে ভারত-ই। তারপরেই ইংল্যান্ড কোচ সিলভারউডকে একহাত নিলেন মাইকেল ভন।

শেষদিনে ভারত দারুণভাবে প্রত্যাবর্তন করে মহম্মদ শামি এবং জসপ্রীত বুমরার ৮৯ রানের অপরাজিত পার্টনারশিপে। ২৭২ রানের টার্গেট খাড়া করতেই শেষে দুটো সেশনেই লুটিয়ে পড়ে ইংল্যান্ড। মাত্র ১২০ রানে।

দলের এমন শোচনীয় হার দেখে মাইকেল ভন ফেসবুকে নিজের প্রোফাইলে লিখেছেন, “দুরবস্থা শুরু হয়েছিল ওই ঘন্টাতেই। লাঞ্চের ২০ মিনিট আগে। ইংল্যান্ড ক্রিকেটের কাছে এমন শোচনীয় কান্ড আগে কখনও দেখিনি।”

আরও পড়ুন: অ্যান্ডারসনকে মারতেই আগুন জ্বলে ড্রেসিংরুমে, বুমরার বিষ-বাউন্সারে বারুদে জবাব কোচের

লড়াইটা শুরু করেছিলেন বুমরাই। জেমস আন্ডারসনকে বাউন্সারের বন্যায় ভাসিয়ে দিয়ে। তারপরে বুমরা ব্যাট করতে নামার পরেই ইংল্যান্ডের পেসাররা হামলে পড়েন। মার্ক উডের বাউন্সারের মোকাবিলা করতে হয় বুমরাকে। সেই সময় জস বাটলারের সঙ্গেও কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়তে দেখা যায় তারকা পেসারকে।

তবে বুমরাদের বাউন্সারের কড়াইয়ে ফেলার স্ট্র্যাটেজি মোটেই কাজে আসেনি। ২০৯/৮ থেকে ভারত শেষপর্যন্ত ২৯৮/৮ পর্যন্ত টেনে নিয়ে যায় বুমরা-শামির ব্যাটে ভর করে। শেষে ১৫১ রানে টেস্ট জয়ও সম্পন্ন করে। ভন লিখেছেন, “জসপ্রীত বুমরাকে বাউন্সারে ঘায়েল করতে গিয়ে কীভাবে ইংল্যান্ড খেলায় খেই হারিয়ে ফেলল, তা নিয়ে অনেক কিছু লেখালেখি হচ্ছে। জো রুটকেও ডুবিয়ে দিয়েছে দলের কিছু সিনিয়র প্লেয়ার। যাঁদের তৎক্ষনাৎ উচিত ছিল বিষয়টা থামানো। তবে কোচের কাছ থেকে কিছু আশা করেছিলাম।”

আরও পড়ুন: বাউন্সারের পর বাউন্সার! বুমরার বিষ-বোলিংয়ে দুঃস্বপ্ন আন্ডারসনের, মুখ খুললেন স্টেইনও

“কেন সিলভারউড কারোর মাধ্যমে ড্রিংক্স দেওয়ার সময় বার্তা পাঠালেন না, যে এটা কী হচ্ছে, এক্ষুনি ট্যাকটিক্স পরিবর্তন করা হোক। আমি যদি মাঠে ব্রেন ফেড মুহূর্তের শিকার হতাম, কোচ ডানকান ফ্লেচার অন্তত আমাকে এমনটাই করতেন।” বলছেন ভন।

সেইসঙ্গে প্রাক্তন ইংরেজ অধিনায়কের আরও সংযোজন, “প্রত্যেক টেস্ট ম্যাচেই এমন কিছু মুহূর্ত আসে যা টেস্টের গতিপথ বদলে দেয়। সেরা দল সেখান থেকেই জয়ের রাস্তা খুঁজে নেয়। দ্বিতীয় টেস্টে এটাই বড়সড় মুহূর্ত ছিল। আর ইংল্যান্ড পুরোটাই উড়িয়ে দিল। এর জন্য সিলভারউডকেও দায়িত্ব নিতে হবে।”

আরও পড়ুন: আন্ডারসনে মেজাজ হারিয়ে অশ্লীল গালি কোহলির! লর্ডস ধুন্ধুমার, ভিডিও দেখুন

কোচকে সমালোচনার তোরে ধুইয়ে দিয়ে ভন বলেছেন, “ক্রিস সিলভারউডকে দেখাতে হবে এই সিরিজে মোমেন্টাম বদলাতে উনি সক্ষম। কারণ এই মুহূর্তে বিরাট কোহলি ইংল্যান্ডকে যে অবস্থায় চেয়েছিল সেই গনগনে অবস্থাতেই পড়েছে ওঁরা। যেখানে ইংল্যান্ড মোটেই এই মুহূর্তে সোজাসুজি ভাবতে পারছে না। সহজ ভুল করে বসছে।”

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Sports news download Indian Express Bengali App.

Web Title: India va england michael vaughan criticises england coach silverwoods bouncer strategy to jasprit bumrah and mohammed shami on fifth day of lords test