scorecardresearch

মা কালীর স্তুতি প্রধানমন্ত্রীর গলায়, শক্তির দেবী নিয়ে মন্তব্যে ধুয়ে দিলেন মহুয়াকে?

রবিবার স্বামী আত্মস্থানন্দের জন্ম শতবর্ষের অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রেখেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

Goddess Kali’s blessings are with country, says PM Modi
মা কালী নিয়ে স্তুতি নমোর গলায়। মহুয়ার মন্তব্য নিয়ে মুখ খুললেন মোদী?

”দেশের সঙ্গে দেবী কালীর আশীর্বাদ রয়েছে, তা সঙ্গে নিয়েই আধ্যাত্মিক শক্তিতে বিশ্বের কল্যাণে দেশ এগিয়ে চলেছে।” রবিবার শক্তির দেবী কালীকে নিয়ে এমনই স্তুতি ধরা পড়ে প্রধানমন্ত্রীর গলায়। রবিবার স্বামী আত্মস্থানন্দের জন্ম শতবর্ষের অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন মোদী। রামকৃষ্ণ মিশনের আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে দেবী কালীর স্তুতিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ”রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব দেবী কালীর দর্শন পেয়েছিলেন। তিনি বিশ্বাস করতেন যে সব কিছুই তাঁর চেতনা দ্বারা পরিব্যাপ্ত।”

দেবী কালীর স্তুতিতে এদিন প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ”শ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব ছিলেন এমন একজন সাধক। যিনি মা কালীর দর্শন পেয়েছিলেন। যিনি মা কালীর চরণে তাঁর সমস্ত সত্তা সমর্পণ করেছিলেন। তিনি বলতেন এই সমস্ত জগৎ, দেবীর চৈতন্যে সর্বত্র বিরাজমান। বাংলার কালীপূজায় এই চেতনা দেখা যায়। এই চেতনা বাংলা ও দেশের বিশ্বাসে দৃশ্যমান।”

প্রধানমন্ত্রীর দেবী কালী নিয়ে এদিনের ‘চিন্তা-বিশ্বাস’ রাজনৈতিক দিক দিয়েও যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। মাত্র কয়েকদিন আগেই দেবী কালী নিয়ে মন্তব্য করে বিজেপি তো বটেই কট্টর হিন্দুত্ববাদীদের রোষের মুখে পড়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। খোদ দলই কালী নিয়ে মন্তব্যে মহুয়ার পাশে দাঁড়ায়নি, বরং সাংসদের মন্তব্যের নিন্দা করেছে তৃণমূল।

ঠিক কী বলেছিলেন মহুয়া? একটি তথ্যচিত্রের পোস্টারে কালী ধূমপান করছেন বলে দেখানো হয়েছিল। সেই সম্পর্কে সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের একটি অনুষ্ঠানে মহুয়াকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ”তাঁর কাছে কালী এমন একজন দেবতা, যিনি মদ, মাংস সবই খান। সিকিমে কালীর প্রসাদ হুইস্কি।” মহুয়ার এই মন্তব্যের পরেই রে-রে করে জ্বলে উঠতে শুরু করেন হিন্দুত্ববাদী নেতাদের একাংশ। এরাজ্যে বিজেপির তরফে পথে নেমে বিক্ষোভ দেখানো হয়। মহুয়াকে গ্রেফতারের দাবিতে থানা ঘেরাও পর্যন্ত হয়েছে।

আরও পড়ুন- তৃণমূলে টগবগিয়ে ছুটছে বাবুলের ঘোড়া, দলে বিরাট পদে তারকা বিধায়ক!

ঠিক এই আবহেই এবার দেবী কালী সম্পর্কে নিজের চিন্তা-ভাবনা জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যদিও এদিন মহুয়ার নাম মুখেও আনেননি মোদী। বেলুড় মঠের সঙ্গে নমোর যোগাযোগ বহু পুরনো। রাজনীতিতে নামার আগে তিনি ছুটে এসেছিলেন বেলুড়ে। পরে প্রধানমন্ত্রী হয়েও একাধিকবার তিনি গিয়েছেন বেলুড় মঠে। বেলুড়ে মোদী সময় কাটিয়েছেন স্বামীজিদের সঙ্গে।

আরও পড়ুন- পাখির চোখ ‘২৪, তৃণমূলের কোমর ভাঙতে বঙ্গ BJP-র বাজি সেই কেন্দ্রীয় নেতারাই

এদিন স্বামী আত্মস্থানন্দের জন্ম শতবর্ষের অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে মোদী আরও বলেন, ”যখনই আমার সুযোগ ছিল, আমি বেলুড় মঠ এবং (দক্ষিণেশ্বর) কালী মন্দির (নদীর ওপারে)-এ গিয়েছি। এপারের সঙ্গে ওপারের সংযোগ অনুভব করাটা স্বাভাবিক। যখন আপনার বিশ্বাস শুদ্ধ হয়, তখন শক্তি (দেবী) নিজেই আপনাকে পথ দেখান। মা কালীর সীমাহীন আশীর্বাদ সর্বদা ভারতের সঙ্গে থাকে। বিশ্বের কল্যাণে এই আধ্যাত্মিক শক্তি নিয়ে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।”

এরই পাশাপাশি মানবতার সেবার জন্য রামকৃষ্ণ মিশনের প্রশংসা করে মোদী বলেন, ”এখানকার সাধুরা দেশে জাতীয় ঐক্যের বার্তাবাহক হিসেবে পরিচিত। বিদেশে এঁরা ভারতীয় সংস্কৃতির প্রতিনিধি।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Goddess kalis blessings are with country says pm modi